মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০১৭ ,১৬ ফাল্গুন ১৪২৩
২৩ অক্টোবর ২০১৬ রবিবার , ৮ : ১১ অপরাহ্ন

  • দুলাভাইকে গাছে বেঁধে সোনারগাঁয়ে শ্যালিকাকে গণধর্ষণ

    x

    Decrease font Enlarge font

    g1টাইমস নারায়ণগঞ্জ (সোনারগাঁ প্রতিনিধি): সোনারগাঁ উপজেলার মন্দিরপুর এলাকায় দুলাভাইকে গাছের সঙ্গে বেঁধে তরুণী শ্যালিকাকে গণধর্ষন করেছে স্থানীয় বখাটেরা। স্থানীয়ভাবে বিচার না পেয়ে রবিবার বিকেলে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই তরুনী। পুলিশ এদিন বিকেলেই অভিযান চালিয়ে বখাটে সেলিম মিয়া ও আজিজুল ইসলামকে গ্রেফতার করেন।

    সোনারগাঁ থানায় দায়ের করা লিখিত অভিযোগপত্রে জানাগেছে, উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের মন্দিরপুর গ্রামে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ডেমরা থেকে তরুনী ও তার দুলাভাই আলম মিয়ার সাথে তার ভাগিনা স্বপনের বাড়িতে বেড়াতে আসে। পরে রাত ১২ টার দিকে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে বাহিরে বের হয় তরুনী। এসময় ওৎ পেতে থাকা একই গ্রামের মাদক সেবনকারী বখাটে সেলিমের নেতৃত্বে ডালিম মিয়া, আজিজুল ইসলাম, আলম মিয়া সহ ৫/৭ জনের একটি দল ওই তরুণীকে মুখ চেপে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যায়। বিষয়টি তরুণীর দুলাভাই আলম মিয়া টের পেয়ে তাদের পিছু নিলে মন্দিরপুর কাঠবাগানে আলমকে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখে। এসময় দুলাভাই আলমের সামনে শ্যালিকা তরুণীকে পালাক্রমে রাতভর গণধর্ষন করে বখাটেরা।

    বিষয়টি শুক্রবার সকালে জানাজানি হলে স্থানীয় বিচার শালিসকারী আনোয়ার হোসেন ও মঞ্জুর মিয়াকে ধর্ষকরা ম্যানেজ করে ঘটনাটি ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করে। পরে আনোয়ার হোসেন ও মঞ্জুর মিয়া রোববার বিকেলে তাদের বিচার সালিশ করার সময় দেয়। কিন্তু এদিন স্থানীয়দের কাছে বিচার না পেয়ে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন তরুনী।

    অভিযোগের পর রবিবার বিকেলে থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আবুল কালাম আজাদের নেতৃত্বে একাধিক টিম মন্দিরপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ঘটনার মুল হোতা সেলিম মিয়া ও আজিজুল ইসলামকে গ্রেফতার। গণধর্ষনের শিকার ওই তরুণী ডেমরার লালানগর গ্রামের বাসিন্দা ও আদমজী ইপিজেটের গার্মেন্টকর্মী। গ্রেফতারকৃত ধর্ষক সেলিম মিয়া মন্দিরপুর গ্রামের তোতা মিয়ার ছেলে ও আজিজুল ইসলাম একই গ্রামের আলী রহমানের ছেলে।

    সোনারগাঁ থানার ওসি মঞ্জুর কাদের জানান, গণধর্ষণের ঘটনায় ওই এলাকায় অভিযান চালিয়ে দুই বখাটেকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।