মঙ্গলবার, মে ২৩, ২০১৭ ,৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪
১৬ নভেম্বর ২০১৬ বুধবার , ৭ : ৫৭ অপরাহ্ন

  • মুক্তিযোদ্ধারা বলতে ভয় পান কেন প্রশ্ন আইভীর

    x

    Decrease font Enlarge font

    09টাইমস নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াত আইভী বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের জন্ম হয়েছিল নারায়ণগঞ্জের মিউচুয়্যাল ক্লাবে। তৎকালীণ সময়ে বঙ্গবন্ধুসহ কয়েকজন নেতা যখন চাষাড়া বায়তুল আমানে দলটির প্রতিষ্ঠায় বসতে চেয়েছিল, তখন বাড়িটির চারপাশ ঘিরে রেখেছিল অসংখ্য পুলিশ বাহিনী। তখন বঙ্গবন্ধু নেতৃবৃন্দসহ সৈয়দপুরের দিকে রওনা হলে এই মিউচুয়্যাল ক্লাবের আ’লীগ নেতৃবৃন্দ তাকে অভয় দিয়ে এই ক্লাবে নিয়ে আসেন। আর এখানেই বঙ্গবন্ধু আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা করেন। আমি একটা বিষয় স্পষ্ট নই যে আওয়ামী লীগের জন্মস্থান হিসেবে ১৭নং ওয়ার্ডের মানুষ মিউচুয়্যাল ক্লাবের নাম বলতে ভয় পান কেন। কার ভয়ে তারা এই ক্লাবের ঐতিহ্য তুলে ধরতে ভয় পান। এমনকি এই ওয়ার্ডের মুক্তিযোদ্ধারাও আ’লীগের জন্মস্থান হিসেবে মিউচুয়্যাল ক্লাবের নাম নিতে ভয় পান। তবে আমি গর্ব করে বলতে পারি, আওয়ামী লীগের জন্ম এই ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটিতেই হয়েছিল।

    বুধবার (১৬ নভেম্বর) বিকেলে নগরীর জিমখানা মাঠে আলাউদ্দিন খান স্মৃতি স্টেডিয়াম এর সংস্কার কাজ সম্পন্ন হওয়ায় এক প্রীতি ফুটবল ম্যাচ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

    09-1

    না’গঞ্জে খেলার মান ধরে রাখার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনার ইচ্ছে দেশের প্রতিটি অঞ্চলের পাড়া-মহল্লায় অন্তত একটি করে খেলার মাঠ থাকুক। যাতে করে এলাকার যুব সমাজ খেলার প্রতি মনোনিবেস করে খারাপ কাজ থেকে বিরত থাকতে পারে। সেই লক্ষেই এই মাঠটি আমি সংস্কার করেছি। এই মাঠটির কাজ করতে গিয়ে আমাকে অনেক মামলা হয়রানির শিকার হতে হয়েছে। তবুও আমি পিছিয়ে থাকিনি। ভবিষ্যতে নাসিকের প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে খেলার মাঠ স্থাপনের ইচ্ছা আছে। নাসিকের মেয়র হিসেবে হোক আর এলাকার মেয়ে হিসেবেই হোক, ভবিষ্যতে এভাবেই আমি আপনাদের সেবা করে যেতে চাই।’

    09-2

    বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক তানভির মাহমুদ টিটু বলেন, ‘খেলাধুলার মধ্যে রাজনীতির কোন স্থান নেই। একটা সময় ছিল, যখন দেশের ফুটবল ও ক্রিকেট খেলায় নারায়ণগঞ্জের সূর্য সন্তানেরা নেতৃত্ব দিয়েছেন। কিন্তু বর্তমানে সেই ধারা থেকে আমরা অনেকটা পিছিয়ে আছি। আমি জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম খেলাধুলায় জেলার সেই সোনালী ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনব। আমরা চাই সেই সময় আবার ফিরে আসুক। সেই ভাবেই আমরা জেলা ক্রীড়া সংস্থা এগিয়ে যাচ্ছি।’

    নাসিক কাউন্সিলর অসিত বরণ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার যুগ্ম সম্পাদক শাহীন হোসেন, জেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল কাদির, শহর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আহাম্মদ আলী রেজা উজ্জ্বল, মহানগর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মিমু, নাসিক প্যানেল মেয়র খোদেজা নাসরিন, ১৭নং ওয়ার্ড সাবেক কাউন্সিলর অলিউদ্দিন ভূঞা, বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক খেলোয়ার সালাউদ্দিন আহমেদ, বিশিষ্ট শিল্পপতি পরিতোষ কান্তি সাহা, বিশিষ্ট ক্রীড়াবিদ খালিদ হাসান, চেম্বার অব কমার্সের সদস্য রেফায়েত উল্লাহ রিটনসহ প্রমুখ।