রবিবার, জানুয়ারী ২২, ২০১৭ ,৯ মাঘ ১৪২৩
০৪ ডিসেম্বর ২০১৬ রবিবার , ৮ : ৪৩ অপরাহ্ন

  • বিজয়ের ৪৫তম বছর স্মরণীয় রাখতে জেলা প্রশাসনের কর্মসূচী

    x

    Decrease font Enlarge font

    10টাইমস নারায়ণগঞ্জ: মহান বিজয় দিবস, এ যেন এক মহোৎসব। মুক্তির বিজয় আনন্দ। ১৯৭১ সালের এ দিনে পাক হানাদার বাহিনীর বর্বরতা থেকে মুক্তি পেয়ে জন্ম নিয়েছিল লাল সবুজের পতাকার স্বাধীন বাংলাদেশ। সেদিনের বিজয়ের ধারবাহিকতায় আজও বিজয়ের উল্লাসে রূপান্তরিত হয়ে আছে। তাইতো সারাদেশের ন্যায় বিজয়ের ৪৫ বছর পূর্তি উদযাপনে বিজয় উৎসব পালন করার জন্য নানা আয়োজন চলছে নারায়ণগঞ্জে।

    নারায়ণগঞ্জে ৪৫তম বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে ৩দিন ব্যাপী কর্মসূচী পালনের প্রস্তুতি চলছে।

    বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে শেখ হাসিনা ও উন্নয়ন বিষয়ে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে রচনা লিখন প্রতিযোগীতা, শিশুদের চিত্রাঙ্কণ প্রতিযোগীতা, শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন এবং নারায়ণগঞ্জ রাইফেল ক্লাবে শুটিং প্রতিযোগিতা সহ নানা আয়োজন।

    আগামী ১৬ ডিসেম্বর মূল অনুষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে দিবাগত রাত ১২টা ১মিনিটে ৩১ টি তোপধ্বনি এবং বিজয় স্তম্ভে পুষ্পস্তর্বক অর্পণ। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারী, আধা-সরকারী, স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান এবং বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল ৯টায় ওসমানী পৌর স্টেডিয়ামে কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠান। দুপুর ১২টায় শহরের সিনেমা হলসমূহে/গুরুত্বপূর্ন স্থান সমূহে ছাত্র-ছাত্রীদের বিনা টিকেটে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক পূর্নদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র প্রর্দশন। সাড়ে ১২ টায় নারায়ণগঞ্জ ক্লাব লিমিটেডে জেলার শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবার, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সদর উপজেলা বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা। দুপুর ১টায় স্থানীয় সকল হাসপাতাল, জেলখানা, শিশুসদন, এতিমখানা ও সরকারী আশ্রয়কেন্দ্রে উন্নত মানের খাবার পরিবেশন। দুপুর ২টা ৩০মিনিটে নারায়ণগঞ্জ সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে জেলা মহিলা ক্রীড়া সংস্থার আয়োজনে মহিলাদের ক্রীড়া অনুষ্ঠান। সাড়ে ৩টায় ওসমানী পৌড় স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসন বনাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার এক প্রীতি ম্যাচ। সন্ধ্যা ৬টায় সার্কিট হাউজে সুখী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে ডিজিটাল প্রযুক্তির সার্বজনীন ব্যবহার এবং মুক্তিযুদ্ধ শীর্ষক আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।

    এছাড়া বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে বাদ আসর মসজিদসহ বিভিন্ন ধর্মীয় উপাসনালয়ে দেশে শান্তি ও উন্নয়নের জন্য বিশেষ প্রার্থনার ব্যবস্থা করা হবে।

    এদিকে, এবারের বিজয় দিবস নারায়ণগঞ্জবাসীর জন্য স্মরণীয় করে রাখার ঘোষণা দিয়েছেন জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া।