শনিবার, আগস্ট ১৯, ২০১৭ ,৪ ভাদ্র ১৪২৪
১৪ ডিসেম্বর ২০১৬ বুধবার , ৮ : ১৬ অপরাহ্ন

  • স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে খাবারে লবন পরিহারের পরামর্শ ডিসির

    x

    Decrease font Enlarge font

    06টাইমস নারায়ণগঞ্জ: স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে মাত্রাতিরিক্ত লবন না খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া।

    বুধবার (১৪ ডিসেম্বর) দুপুরে জেলা প্রসাশক সম্মেলন কক্ষে "খাবারে অতিরিক্ত লবণ পরিহার করুন, স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়িয়ে চলুন" শীর্ষক এডভোকেসী সভায় এই পরামর্শ দেন তিনি।

    জেলা প্রশাসক বলেন, স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে হলে খাবারে অতিরিক্ত লবন পরিহার করা জরুরী। আর খাবারে অতিরিক্ত লবন ব্যবহারে ক্ষতিকর দিকটি তুলে ধরার জন্য প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো ভাল ভূমিকা রাখতে পারবে। এজন্য প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে এসংক্রান্ত লিফলেট বিতরন করা প্রয়োজন। এতে শিক্ষার্থীরা যেমন সচেতন হবে, তেমনি তাদের পিতা-মাতা, ভাই-বোনকেও সচেতন করতে পারবে।

    উক্ত এডভোকেসী/ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠানে রিসোর্স পার্সন হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য শিক্ষা ব্যুরোর ডেপুটি চীফ ও হেলথ এডুকেশন এন্ড প্রমোসন প্রোগ্রাম ম্যানেজার মোঃ আব্দুস সালাম, জেলার সিনিয়র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার লিমন রায়। কো-অর্ডিনেটর হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. আশুতোষ দাশ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সিনিয়র স্বাস্থ্য শিক্ষা অফিসার মোঃ আমিনুল হক, আরো বক্তব্য রাখেন জেলা পরিবার পরিকল্পনার উপ-পরিচালক মোঃ বসিরউদ্দিন প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিক্যাল অফিসার ডা. প্রবীর কুমার দাশ।

    অনুষ্ঠানে উপস্থিত জেলা ও উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা, বিভিন্ন শ্রেনী-পেশা ও এনজিও প্রতিনিধিদের  উদ্দেশ্যে বক্তারা বলেন, বেঁচে থাকার জন্য আমাদের শরীওে প্রতিদিন সামান্য পরিমান লবনের দরকার। কিন্তু প্রয়োজনের চেয়ে দ্বিগুনেরও বেশি লবন খাচ্ছি। তিন স্তরে এই লবন আমাদের শরীরেও আসছে। প্রথম স্তরে প্রাকৃতিকভাবেই রান্নার কাঁচা উপকরন থেকে শরীওে যথেষ্ট লবন আসছে। স্বাদ বাড়ানোর জন্য দ্বিতীয় স্তরে আমরা রান্নার সময় আবার লবন যোগ করি। এরপরেও অনেকে তৃতীয় স্তরে আবার পাতে লবন ব্যবহার করেন। গবেষনায় দেখা গেছে, এভাবে প্রয়োজনের চেয়ে বেশি বেশি লবন খাওয়ায় মানব দেহে উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি বেড়ে যাচ্ছে। সেইসাথে বাড়ছে হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি। সুস্থ জীবন-যাপনের জন্য আমাদের প্রত্যেককে তাই লবন খাওয়ার পরিমান অর্ধেকে নামিয়ে আনতে হবে। আসুন সবাই মিলে সেই চেষ্টাই করি। সর্বশেষে সবাইকে সারাদিনে এক চা চামচ পরিমান লবন খাওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।