রবিবার, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৭ ,৯ আশ্বিন ১৪২৪
২৬ ডিসেম্বর ২০১৬ সোমবার , ৯ : ৩৩ অপরাহ্ন

  • সিদ্ধিরগঞ্জে নির্বাচনী সহিংসতা বৃদ্ধি ঘটনায় শংকা!

    x

    Decrease font Enlarge font

    guটাইমস নারায়ণগঞ্জ (সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি): শীতের তীব্্রতা বৃদ্ধির সাথে সাথে নারায়ণগঞ্জে নির্বাচনী সহিংসতা বৃদ্ধি পাওয়ায় শংকিত হয়ে পরছেন এ এলাকার বাসিন্দারা। প্রতিদিন বিভিন্ন ওয়ার্ডে হুমকি ধামকি, মারামারি, রাস্তা অবরোধ ও প্রাণ হানির ঘটনা ঘটছে। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ করা হলেও কোন প্রতিকার পাচ্ছেনা ভুক্তভোগিরা। তাই প্রশাসনের দৃষ্টি ভঙ্গি পাল্টিয়ে জনগনের সেবা দিতে আহবান করেছে সচেতন মহল।

    জানা গেছে, ২২ ডিসেম্বর নাসিক নির্বাচনের ফলাফল ঘোষনা হওয়ার পর ৪ নং ওয়ার্ডে বিজয় কাউন্সিলর আরিফুল হক হাসান পরাজিত কাউন্সিলর নজরুল ইসলামের বাড়িতে হামলা চালায়। এতে ৩ জন আহত হয়। পরে পুলিশ দিয়ে  উল্টো থানায় মিথ্যা অভিযোগ করে পরাজিত কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম, তার ভাই মনির হোসেন, ভাগিনা মিজানকে থেকে গ্রেপ্তার করায়।

    ২৩ ডিসেম্বর ৬ নং ওয়ার্ডে বিজয় কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতির সমর্থকরা পরাজিত কাউন্সিলর সিরাজুল ইসলামের কর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হামলা ও ভাংচুর করে। আতংঙ্কে বাড়ি থেকে নারী ও শিশুরা অন্যত্র সরে যায়।

    ২৪ শে ডিসেম্বর রাতে ৮ নং ওয়ার্ডের সৈদয়পাড়া, তাঁতখানা মহল্লায় নির্বাচিত কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লার সমর্থকদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে একটি পরিবারের লোক পরিচয় দিয়ে ভোট ছিনতাই না করতে পেরে হত্যা হুমকি ও মারধার করে।  এমনকি কাফনের কাপড় কিনে রাখতে বলে। এ ঘটনায় রাতেই ২ নং বাসষ্ট্যান্ডে কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লার সমর্থকরা রাস্তা  অবোরধ করলে পলিশ ও নির্বাচিত কাউন্সিলর রুহুল আমিন তার কর্মীদের শান্ত করে। এ ঘটনায় কাউন্সিলর রুহুল আমিন পরাজিত কাউন্সিলর মহসিন, তার ভাই সন্ত্রাসী সাইফুল ভূইয়া, সেলিম ভূঁইয়ার বিরুদ্ধে তার কর্মীদের হত্যার হুমকি ও মারধরের ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দিলেও পুলিশ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

    এদিকে ২৫ শে ডিসেম্বর বিকেলে ৫ নং ওয়ার্ডে সাবেক এমপি’র আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিনের ছেলে বিজয় কাউন্সিলর সাদলিলের সমর্থকরা তার প্রতিপক্ষের পরাজিত কাউন্সিল নজরুল ইসলামের সমর্থককে নাজিম উদ্দিন (৩৬) কে লাথি ও ঘুষি দিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। পরে ঢকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় মারা যায়। এ খবর পেয়ে সাবেক এমপি গিয়াস উদ্দিন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে নিহতের পরিবারকে ম্যানেজ করে লাশ নারায়ণগঞ্জে না এনে নিহতের গ্রামের বাড়ি নেত্রকোনা জেলায় পাঠিয়ে দেয় এবং ঘটনাটি ভিন্ন খাতে নেওয়ার চেষ্টা করছেন তিনি।

    এদিকে ৫ নং ওয়ার্ডে পরাজিত কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম গনমাধম্য কর্মীদের বলেন,তার সমর্থক নাসিম উদ্দিনকে তার প্রতিপক্ষ বিজয় কাউন্সিলর সাদলিরের সমর্থক আনোয়ার লাথি ও ঘুষি মেরে আহত করে। পরে চিকিৎসাধিন অবস্থায় রাতে সে মারা যায়। এ ঘটনাটি বিন্নঘাতে নেওয়ার চেষ্টা করছে সাকেব এমপি’  মহোদয়।

    এ বিষয়ে সাবেক এমপি গিয়াস উদ্দিন ও তার ছেলে কাউন্সিলর সাদলিলের মোবাইলে কয়েক বার ফোন দিলেও তা রিসিভ করেনি।

    এ সব ঘটনায় নিয়ে বিতকৃত সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি মুঃ সরাফত উল্লাহ জানান,সকল ঘটনার তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তদন্তে সত্যতা পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

    • .