মঙ্গলবার, ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০১৭ ,১৬ ফাল্গুন ১৪২৩
০৩ জানুয়ারী ২০১৭ মঙ্গলবার , ৯ : ০৬ অপরাহ্ন

  • জামিনের টাকা জোগাড়ে উকিলের ছোট ভাইয়ের গোপন ঘরে আসামীর স্ত্রী!

    x

    Decrease font Enlarge font

    gটাইমস নারায়ণগঞ্জ (সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি): আসামী জামিনের টাকা যোগাড় করতে না পারায় আসামীর স্ত্রীকে ছোট ভাইয়ের শয্যা সঙ্গিনী করতে গিয়ে ফেঁসে গেছেন এক উকিল। সোমবার (২ জানুয়ারী) রাতে সিদ্ধিরগঞ্জের ৮ নং ওয়ার্ডের মধুগড় বিলে ঘটে এ ঘটনা।

    এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, স্বামীর জামিন (বেলবন্ডের) টাকা জোগারে করতে এডভোকেট মিল্টনের ছোট ভাই মামুন তার গোপন ঘরে আসামীর স্ত্রী রিয়াকে নিয়ে আসে। এলাকাবাসী বিষয়টি টের পেলে মামুনের গোপন ঘরটি ঘেড়াও করলে চতুর মামুন সকলের চোখ ফাঁকি দিয়ে মেয়েটিকে রেখে পালিয়ে যায়। পরে মেয়েটিকে উদ্ধার করে স্থানীয় কাউন্সিলের কাছে নিয়ে আসে। মুহুত্বে মধ্যে শতশত নারী পুরুষ কাউন্সিলর বাড়ি সামেনে এড্যাভোকেট ও তার ভাই মামুনের বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ করে। এ ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার রাত সাড়ে ৮ টায় নাসিক ৮নং ওয়ার্ড মধুঘর বিলে ফারুকের মাছের খামারের টুপড়ি ঘরে। লম্পট মামুন গোদনাইল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক শাহ আলমের ছেলে ও এড: মিল্টনের ছোট ভাই। উদ্ধার হওয়ার রিয়া কুমিল্লা জেলার গড়িপুর সৈয়দপাড়া এলাকার মৃতঃ সালাউদ্দিনর মেয়ে এবং সিদ্ধিরগঞ্জ আদমজী কদমতলী এলাকার ভারাটিয়া।

    উদ্ধার হওয়ার পর রিয়া জানান, কয়েকদিন আগে তার স্বামী রাব্বিকে একটি মাদক মামলায় পুলিশ গ্রেপ্তার করে। এড্যাঃ মিলটন আসামী রাব্বির পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন। রোববার তার স্বামী রাব্বি জামিন হয়। জামিনের বেলবন্ডের টাকা তার কাছে না থাকায় এড: মিলটন জামিনের কাগজ পত্র জেলে পাঠায়নি। পরে সোমবার সকালে আদালতে গেলে এড: মিল্টনের ছোট ভাই মামুন মেয়েটির কাছ থেকে ৫শত টাকা নেয় ও তার কাছ থেকে ৫শত টাকা তার ভাই এড: মিল্টনকে দিয়ে জামিনের কাগজ পত্র জেল খানায় পাঠায়। পরে সারা দিন মামুন তাকে সাথে নিয়ে ঘুরে। পরে সন্ধ্যায় রিয়াকে নিয়ে মধুঘর বিলে ফারুকের মাছের খামারের টুপড়ি ঘরে নিয়ে লম্পট মামুন মাদক সেবন করার সময় এলাকাবাসী বিষয়টি টের পেলে মামুন মেয়েটিকে রেখে পালিয়ে যায়।

    এলাকাবাসী জানায়, লম্পট মামুন  প্রায় সময় খামারের টুপড়ি ঘরে মেয়ে নিয়ে ফুর্তি করে। মাদক সেবন করে। তাছাড়া বাবা আওয়ামীলীগ নেতা হওয়ার সুবাদে  সে মধুঘর, শান্তিনগর এলাকায় মাদক ব্যবসা পরিচালনা করে। আমরা শাহ আলমের ছেলের লম্পট মাদক ব্যবসায়ী মামুনের বিচায় চাই।

    এ বিষয়ে এড: মিলটনের সাথে মোবাইলে কথা হলে রাব্বির জামিন ও তার স্ত্রী রিয়া বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, মামুনের ঘটনার বিষয় আমার জানা নাই। ভাই কথা শুনের মাথা খারাপ হয়ে গেছে। পরে কথা বলি বলে মোবাইলের কল কেটে দেয়।

    নাসিক ৮নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর রুহুল আমিন মোল্লা জানান,এলাকাবাসী মেয়েটিকে উদ্ধার করেছে। বিষয়টি মামুনের চাচাকে জানানো হয়েছে। আর উদ্ধার হওয়ার মেয়েটিকে তার পরিবারের কাছে যাওয়ার ব্যবস্থা করেন।