বুধবার, জুন ২৮, ২০১৭ ,১৩ আষাঢ় ১৪২৪
০৭ জানুয়ারী ২০১৭ শনিবার , ৯ : ০১ অপরাহ্ন

  • অা.লীগের জেলা-মহানগর সভাপতির মধ্যে চলছে ‘মনস্তাত্বিক’ দ্বন্দ!

    x

    Decrease font Enlarge font

    02টাইমস নারায়ণগঞ্জ: দলীয় প্রতীকে সদ্য অনুষ্ঠিত নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনকে ঘিরে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগ নেতৃবন্দদের মধ্যে ঐক্যের সৃষ্টি হলেও জেলা পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে এখন ‘মনস্তাত্ত্বিক’ দ্বন্দ চলছে ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষস্থানীয় দুই নেতার মাঝে। যার মধ্যে একজন জেলা পরিষদের প্রশাসক ছিলেন, অপরজন নবাগত চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। এরা হলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন।

    তবে আওয়ামীলীগের ঐক্য এখন অনেকটা প্রকাশ্য পরিলক্ষিত হলেও আব্দুল হাই ও আনোয়ার হোসেনের মধ্যকার ‘মনস্তাত্বিক’ দ্বন্দটি গোপনে বিরাজমান আছে- এমনটাই মনে করছেন তৃণমূলের নেতৃবৃন্দরা।

    কেননা, প্রায় ৫ বছর যাবত জেলা পরিষদের প্রশাসক হিসেবে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই দায়িত্ব পালন করলেও এই প্রথম বারের মত অনুষ্ঠিত জেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রত্যাশা থাকলেও চেয়ারম্যান পদে তিনি নির্বাচন করতে পারেন নাই।

    কারন, সদ্য অনুষ্ঠিত জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে চেয়ারম্যান পদে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাইয়ের নাম বেশ জোরেশোরে শোনা গেলেও পরবর্তীতে কাকতালীয় ভাবে নাসিক নির্বাচনে মনোনয়ন বঞ্চিত মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেন জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেয়ে যান। শুধু তাই নয়, বিনা প্রতিদ্বন্দীতায় তিনি নির্বাচিতও হয়ে যান।

    যেই কারনে জেলা পরিষদ থেকে এখন ক্ষমতাচ্যুত হতে যাচ্ছেন প্রশাসক আব্দুল হাই। আর শীর্ষ স্থানীয় এই দু’ নেতার সাথে আলাপকালেও তাদের মধ্যকার ‘মনস্তাত্ত্বিক’ দ্বন্দের আভাস পরিষ্ফুটিত হয়েছে।

    দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ৩য় বর্ষপূর্তি উপলক্ষে সদ্য অনুষ্ঠিত ক্ষমতাসীন দলের ‘গণতন্ত্র বিজয় দিবস’ উদযাপনে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগ কার্যালয় বন্ধ ছিল কেন, কিংবা নারায়ণগঞ্জে বিএনপি একই দিন ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ উদযাপনে সফল হলেও আওয়ামীলীগ কেন ব্যর্থ হলেন এমন নানা প্রশ্নের জবাবে আব্দুল হাই আর আনোয়ার হোসেন পরষ্পরের প্রতি দায় চাপিয়ে দেন।

    এ বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবদুল হাই টাইমস নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আমি মেয়র কাউন্সিলরদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে অংশ নিতে প্রধাণমন্ত্রীর কার্যালয়ে গিয়েছিলাম। ভেবেছিলাম মহানগর আওয়ামীলীগ অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে। তারা কেন করলো না সেটা মহানগর সভাপতি (আনোয়ার হোসেন)কে জিজ্ঞেস করুন। তবে জেলার পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন হয়ে গেলে আগামীতে আর এ সমস্যা থাকবে না।

    একই বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন টাইমস নারায়ণগঞ্জকে বলেন, অনুষ্ঠান যে শুধু দলীয় কার্যালয়ে সবাইকে দেখিয়ে করতে হবে, এমনতো কোন কথা নেই। আমরা বিভিন্ন ওয়ার্ডে নেতাকর্মীদের সাথে এ বিষয়ে আলাপ আলোচনা করেছি। আমার বাসায়ও নেতাকর্মীরা এসেছে। তাদের সাথেও এ বিষয়ে কথা হয়েছে। আনুষ্ঠানিকভাবে জেলা ও মহানগরের উদ্যোগে করার কথা ছিলো। কেন হলো না, তা জেলা সভাপতি হাই সাহেবকে জিজ্ঞেস করুন।

    তাই পরষ্পরকে দোষারোপ করে শীর্ষস্থানীয় এই দুই নেতার বক্তব্য দেয়া উভয়ের মধ্যকার থাকা ‘মনস্তাত্ত্বিক’ দ্বন্দের বহি:প্রকাশ বলে মন্তব্য করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা।