বুধবার, জুন ২৮, ২০১৭ ,১৩ আষাঢ় ১৪২৪
০৯ জানুয়ারী ২০১৭ সোমবার , ৭ : ৩১ অপরাহ্ন

  • বিএনপির পদ বাগাতে শকুর ভন্ডামীর গোমর ফাঁস!

    x

    Decrease font Enlarge font

    07টাইমস নারায়ণগঞ্জ: এতদিন ইঁদুরের গর্তে লুকিয়ে থাকলেও এবার দলে পদ বাগাদে মাতৃতুল্য নারীদের নিয়ে নতুন ভন্ডামী শুরু করেছে শহর বিএনপির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক নাসিক ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শওকত হাশেম শকু। বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশী বাঁধার নামে ভন্ডামীর গোমর এখন ফাঁস হয়ে গেছে।

    জানাগেছে, শীঘ্রই গঠিত হতে যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির কমিটি। যেই কারনে বিগত সময়ে বিএনপির কোন কর্মসূচীতে শকুকে রাজপথে দেখা না গেলেও এবার তিনি দলীয় কর্মসূচী পালনে রাজপথে নামতে শুরু করেছেন।

    তবে বিগত সময়ে সরকারী দলের দালালী করার কারনে শহর বিএনপিতে একেবারই অসহায় হয়ে পড়েছেন শকু। যেই কারনে বিএনপির নেতাকর্মীদের না পেয়ে নিজের এলাকার বেশ কয়েকজন নারী-পুরুষকে নিয়ে গত ৮ জানুয়ারী কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ডনচেম্বারে ফটোসেশনের বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করে। সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে থাকা শকুসহ নারী-পুরুষদের মুখে মলিন হাসি দেখাগেছে। যা কিনা নিজ স্বার্থ হাসিলের জন্য ফটোসেশন করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন স্থানীয়রা।

    যদিও শকুর পক্ষ থেকে দাবী করা হয়েছে তার মিছিলে নাকি শতাধিক নারী নিয়ে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। যাতে পুলিশ বাঁধা দিয়ে ব্যানার কেঁড়ে নিয়েছে!

    কিন্তু বাস্তবতা হলো শকুর এই ফটোসেশনের কথা জানতো না খোদ পুলিশ! তাই পদ বাগাতে বিক্ষোভ কর্মসূচীর নামে পুলিশী বাঁধার যে অভিযোগ আনা হয়েছে, তা যে নিছকই ভন্ডামী তা প্রতীয়মান হয়েছে বলে মন্তব্য করেন বিএনপির তৃণমূল নেতৃবৃন্দরা।

    এব্যাপারে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: আসাদুজ্জামান টাইমস নারায়ণগঞ্জকে জানান, ডনচেম্বারে সোমবার কাউন্সিলর শকুর উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিলের সংবাদটি আপনাদেরই কাছেই প্রথম শুনলাম। কারন আমরা তখন ডিআইটিতে বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে দায়িত্বে ছিলাম। তাই শকুর মিছিলে পুলিশের বাঁধা দেয়ার সংবাদটি নিছকই ভূয়া। কারন পুলিশ যেখানে কর্মসূচীর ব্যাপারে জানেইনা, সেখানে বাঁধা দিবে কিভাবে?

    প্রসঙ্গত, গত ২২ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ সেলিম ওসমানের আর্শীবাদে শকু কাউন্সিলর নির্বাচিত হওয়ার পর সম্প্রতি বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সাথে সাক্ষাত করতে যান। কিন্তু খালেদা জিয়া তাকে তার সাথে ছবি তোলার অনুমতি দেয়নি। এরপর শকু যান বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহানের সাথে দেখা করেন। তখন বিএনপির কেন্দ্রীয় এই নেতা শীঘ্রই নারায়ণগঞ্জ মহানগর কমিটি গঠনের কথা জানালে দলীয় পদ বাগাতে শকু এখন পুনরায় ফটোসেশনের রাজনীতি শুরু করে দিয়েছেন।