বৃহস্পতিবার, মার্চ ২৩, ২০১৭ ,৮ চৈত্র ১৪২৩
০৪ ডিসেম্বর ২০১৫ শুক্রবার , ২ : ৫২ অপরাহ্ন

  • আজও পরের বাড়িতে আশ্রিত সোনারগাঁয়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা আসলাম ॥ তবুও বললেন ভাল আছি

    x

    Decrease font Enlarge font

    03টাইমস্ নারায়ণগঞ্জ: ঘরে এসেছে আবারও বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। বিজয়ের এই আনন্দের দিনে সোনারগাঁয়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা  মোঃ আসলাম (৬৭) টাইমস্ নারায়ণগঞ্জকে একান্ত স্বাক্ষাৎকারে দেয়া বক্তব্যে অত্যন্ত দুঃখের সাথে জানান, জীবনে এমন স্বাক্ষাৎকার অনেক দিছি, অনেক আশ্বাস পাইছি,আবার ফ্ল্যাট বরাদ্দের চিঠিও পাইছি কিন্তু সরকারের দেয়া মুক্তিযোদ্ধা সম্মাণী ছাড়া এর বেশী কিছু ভাগ্যে জোটে নাই।

    আমি এখন পরের জমিতে ঘর বানাইয়া আশ্রিত হইয়া পরিবার পরিজন লইয়া বাইচা আছি। তিনি জানান, সোনারগাঁ পৌরসভার সাবেক পৌর মেয়র সাইদুর রহমান মোল্লা তার পরিত্যাক্ত বাড়িতে পরিবার নিয়া আমাকে ঘর বানাইয়া থাকতে দিছে। সেই সুবাদে প্রায় ২০ বছর ধরে সেখানেই বসবাস করতাছি। উনি যদি আজকে এসে আমাকে তার বাড়ি ছেড়ে দিতে বলেন তাহলে আজই আমাকে তার বাড়ি ছেড়ে দিতে হবে। মুক্তিযুদ্ধ করছি, স্বাধীনতা পাইছি, রাজাকাররা দেশের মন্ত্রী হইছে, দেশের শত্রু হইয়া জাতীয় পতাকা হাঁকাইয়া গাড়ি দৌড়াইছে। আমি তখন মনের দুঃখে আর বিবেকের তাড়নায় রাজাকার আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ যখন সমাজ কল্যাণ মন্ত্রী হইছে তখন আমি ঐ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন সমাজ সেবা অফিস সোনারগাঁ উপজেলা অফিসের পিয়ন পদের চাকুরী স্বেচ্ছায় ইস্তফা দিছি। চাইলে আরও ৩/৪ বছর আমি এ পদে চাক্রী করতে পারতাম। কিন্তু এইখানে চাক্রী করলে কর্মের প্রয়োজনে আমার ঐ রাজাকার মন্ত্রী’র দপ্তরে যাইতে হইব। অরে স্যার কইতে হইব। শুধু এই দুঃখে আমি চাকুরী থাইকা স্বেচ্ছায় অবসর নিছি।

    তাছাড়া দেশে এখন ভূয়া মুক্তিযোদ্ধার ছড়াছড়ি। হেগ তাপে আর রঙের বাহারে গায়ে আগুন জ্বলে। আমরা যে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা তেমন কোন পরিচয়পত্রও আমাদের নাই। আজ যদি প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের চেনার জন্য আইডি কার্ড থাকতো তাইলে  ঐ সব ভূয়া মুক্তিযোদ্ধারা কোন পাত্তা পাইতোনা।

    তাই আজ এই বিজয়ের মাসে সরকারের কাছে আমার একান্ত প্রত্যাশা, আমাদের প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের যেন পরিচয় পত্রের ব্যবস্থা করে এই সব ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদের অস্বাভাবিকতা থেকে রক্ষা পেতে সহায়তা করেন।