রবিবার, অক্টোবর ১৩, ২০১৯ ,২৮ আশ্বিন ১৪২৬
০২ ডিসেম্বর ২০১৮ রবিবার , ৮ : ৫৬ অপরাহ্ন

  • ভোটের মাঠে বৈধ ৪৭

    x

    Decrease font Enlarge font

    06টাইমস নারায়ণগঞ্জ: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জে ৫টি আসনে দাখিল করা ৬১জন প্রার্থীর মধ্যে ৪৭ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ বলে ঘোষণা করেছেন রিটার্নিং অফিসার। দাখিল ১৪টি বাতিল ঘোষনা করা হয়। ফলে প্রাথমিক পরীক্ষায় ভোটের মাঠে এই ৪৭জন বৈধতা নিয়ে লড়ছেন বলে ধারণা করা যাচ্ছে। তবে আপীলে কয়েকজনের ফিরে আসারও সম্ভাবনা রয়েছে। রয়েছে কয়েকজনের প্রত্যাহারেরও সম্ভাবনা।

    রোববার (২ ডিসেম্বর) জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং অফিসার মো: রাব্বী মিয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

    নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে ১০ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে ৮ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ও ২ জনের মনোনয়ন পত্র বাতিল বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

    তারা হলেন- আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী গোলাম দস্তগীর গাজী, বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ও জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান, বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ও চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা তৈমূর আলম খন্দকার, বিএনপির মনোনীত প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া, জাতীয় পার্টির আজম খান, বাংলাদেশ কমিউনিষ্ট পার্টির মনিরুজ্জামান চন্দন, ইসলামী আন্দোলনের ইমদাদুল্লাহ ও মো. হাবিবুর রহমান। এ আসনে জাকের পার্টির মাহফুজুর রহমান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. রেহান আফজাল এর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে।

    নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে ৮ জন প্রার্থী মনোনয়ন জমা দিয়েছিলেন যার মধ্যে ৭ জনের বৈধ ও ১জনের মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করা হয়।

    বৈধরা হলেন-আওয়ামীলীগের বর্তমান এমপি নজরুল ইসলাম বাবু, বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ও সাবেক এমপি মো. আতাউর রহমান খান আঙ্গুর, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নাসির উদ্দিন, বিএনপির মনোনীত প্রার্থী নজরুল ইসলাম আজাদ, বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ও উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি মাহমুদুর রহমান সুমন, বাংলাদেশ কমিউনিষ্ট পার্টির হাফিজুল ইসলাম, জাকের পার্টির মুরাদ হোসেন জামাল। এ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী আবু হানিফ হৃদয়ের মনোনয়ন বাতিল করা হয়।

    নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনে (সোনারগাঁ) ১৫ জন মনোনয়ন দাখিল করেছিলেন। এদের মধ্যে ১০জনের বৈধ ও ৫ জনের মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করা হয়।

    বৈধরা হলেন-বর্তমান এমপি ও জাতীয় পার্টির মনোনীত প্রার্থী লিয়াকত হোসেন খোকা, বিএনপির মনোনীত প্রার্থী আজহারুল ইসলাম মান্নান, স্বতন্ত্র প্রার্থী ও আওয়ামীলীগের সাবেক এমপি কায়সার হাসনাত, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনীত প্রার্থী মাওলানা ছানাউল্লাহ নূরী, বাংলাদেশ কমিউনিষ্ট পার্টির মনোনীত আঃ সালাম বাবুল, বাংলাদেশ তরীকত ফেডারেশনের প্রার্থী মজিবুর রহমান, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডির এএনএম ফখর উদ্দিন ইব্রাহিম, জাকের পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তফা আমীর ফয়সল, মুরাদ হোসেন জামাল, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির রাশেদ ফেরদৌস সোহেল মোল্লা।

    এ আসনে মনোনয়নপত্র বাতিল হয়- এরশাদের পালিত কন্যা অনন্যা হুসাইন মৌসুমী (স্বতন্ত্র), গণফ্রন্টের মো. সিরাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট বিএনএফ এর মো. সাহাব উদ্দিন হোসেন ভূইয়া, আওয়ামীলীগের প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম ও আওয়ামীলীগ নেতা মো. মোশারফ হোসেনের (স্বতন্ত্র)।

    নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনে (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) ১৬ জন মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। ৫ জনের বাতিল ঘোষনা করে ১১ জনের মনোনয়ন বৈধ বলে ঘোষণা করা হয়।

    বৈধ প্রার্থীরা হলেন-বর্তমান এমপি ও আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী শামীম ওসমান, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহ আলম, বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির হিমাংশু সাহা, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদের সেলিম মাহমুদ, বাংলাদেশ বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির মাহমুদ হোসেন, ইসলামী আন্দোলনের মুহাম্মদ শফিকুল ইসলাম, সিপিরির প্রার্থী ইকবাল আলী, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি বাংলাদেশ-ন্যাপ এর ওয়াজি উল্লাহ মাতব্বর অজু, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের মো. শফিকুল ইসলাম দেলোয়ার, জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ মনির হোসেন, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মো. জসীম উদ্দিন ।

    এ আসনে বিএনপির সাবেক এমপি মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন (স্বতন্ত্র), জাতীয় শ্রমিক লীগের নেতা কাউসার আহমেদ পলাশ (স্বতন্ত্র), বিএনপির মনোনীত প্রার্থী ও জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মামুন মাহমুদ, গোলাম মুহাম্মদ কায়সার (স্বতন্ত্র), জাতীয় পার্টির ছালাউদ্দিন মোল্লার মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে।

    নারায়ণগঞ্জ-৫ (শহর-বন্দর) আসনে ১২ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। এরমধ্যে ১১ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ বলে ঘোষনা দিয়েছেন রিটানিং অফিসার। তারা হলেন- বর্তমান এমপি ও জাতীয় পার্টির সেলিম ওসমান, মহানগর বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম, নাগরিক ঐক্যের উপদেষ্টা এস এম আকরাম, সাম্যবাদী দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সাইদ আহমেদ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর হাজী আবুল কালাম, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদের আবু নাঈম খান বিপ্লব, খেলাফত মজলিস এর হাফেজ কবির হোসেন, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের আল্লামা সৈয়দ বাহাদুর শাহ মুজাদ্দেদী, সিপিবির প্রার্থী এড. মন্টু ঘোষ, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির মো. আল আফতাব, জাকের পার্টির মোর্শেদ হাসান।

    এছাড়া মহানগর যুবদলের সভাপতি মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদের মনোনয়ন বাতিল হয়েছে।