রবিবার, মে ২৬, ২০১৯ ,১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬
১৮ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ সোমবার , ৩ : ০৩ অপরাহ্ন

  • সাব্বির আলম খন্দকারের মৃত্যুবার্ষিকীতে শোক র‌্যালী ও দোয়া

    x

    Decrease font Enlarge font

    002টাইমস নারায়ণগঞ্জ: শোক র‌্যালী ও দোয়া মাহফিলের মাধ্যমে বিকেএমইএ’র সাবেক সহসভাপতি ক্রীড়ানুরাগী সাব্বির আলম খন্দকারের ১৫তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন করা হয়েছে। শোক র‌্যালী থেকে সাব্বিরের খুনিদের বিচার ও নারায়ণগঞ্জকে সন্ত্রাস ও মাদক মুক্ত করার দাবীতে ও ১৮ ফেব্রুয়ারীকে ‘সন্ত্রাস ও মাদক বিরোধী দিবস’ ঘোষণার দাবি জানানো হয়।

    র‌্যালী পূর্ব সমাবেশে মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন খানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন- বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও সাব্বির আলম খন্দকারের বড় ভাই অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দাকার, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এড. আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, মহানগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামাল, বিএিনপি নেতা খন্দকার মনিরুল ইসলাম, জেলা ওলামা দলের সভাপতি শামছুর রহমান বেনু, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুকুল ইসলাম রাজীব, মহানগর বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুল ইসলাম সজল, মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মমতাজউদ্দিন মন্তু, আইনজীবি নেতা এড. সরকার বোরহান, এড. হামিদ ভাসানী, এড. শিপলু, জেলা শ্রমিক দল সভাপতি নাসির উদ্দিন, মহানগর শ্রমিক দলের সাধারন সম্পাদক ফারুক হোসেন প্রমুখ।

    তৈমুর আলম খন্দাকার বলেন, ‘আমার ভাইকে কোন ব্যক্তিগত কারণে হত্যা করা হয়নি। শুধু মাত্র সমাজসেবায় মাদক, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজের বিরুদ্ধে কথা বলার কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে। আমার ভাই আইনশৃঙ্খলার মিটিংয়ে সন্ত্রাসী চাঁদাবাজদের নাম উল্লেখ করে এবং তারা কে কত টাকা পায় এসব বলার কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে। আজও আমার ভাইয়ের হত্যা বিচার পাইনি। শুধুমাত্র টাকার কাছে হেরে গেছি। হত্যাকারীরা টাকা দিয়ে ত্রুটিপূর্ণ চার্জশীট করিয়েছে। তাই আজও বিচার পাইনি। খুনিরা আবারো ঢাকায় ফিরে আমাদের খুন করার হুমকি দিচ্ছে।

    সাব্বির আলম খন্দাকার গার্মেন্ট মালিকদের সংগঠন বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফেকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিকেএমইএ) এর সাবেক সহ সভাপতি ও ব্যবসায়ী নেতা ছিলেন। মৃত্যু তিনি নারায়ণগঞ্জ জেলা ক্রীড়া সংস্থা ও নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কর্মাসেরও সহ-সভাপতি ছিলেন।

     

    শহীদ সাব্বির আলম খন্দকার ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে আয়োজিত শোক র‌্যালীটি মাসদাইর পৌর কবরস্থানে গিয়ে শহীদের কবর জেয়ারত, দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।