রবিবার, অক্টোবর ১৩, ২০১৯ ,২৮ আশ্বিন ১৪২৬
০৭ আগস্ট ২০১৯ বুধবার , ১২ : ৩১ পূর্বাহ্ণ

  • বক্তাবলীতে ঈদগাহে গরুর হাট!

    x

    Decrease font Enlarge font

    received_1086414141567659ফতুল্লা প্রতিনিধি, টাইমসনারায়ণগঞ্জ: ইজারার শর্ত ভঙ্গ করে ঈদগাহ দখল করে কোরবানীর পশুর হাট বসিয়েছেন বক্তাবলীর চরবয়রাগাদীর হাটের ইজারাদার সিদ্দিকুর রহমান। লালমিয়ার চরের ব্রীজের পাশে হাট বসানোর অনুমতি থাকলেও তিনি পাশের ঈদগাহ দখল করেছে। ওই এলাকার একমাত্র ঈদের নামাজের স্থানেও গরুর হাট বাসনোর এ পায়ঁতারায় স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।   হাটের ইজারাদার আদম ব্যবসায়ী সিদ্দিকুর রহমান স্থানীয় ইউপি সদস্য আমজাদ হোসেনের পিতা। বাপবেটার দৌড়াত্ব দিন দিন বেড়ে চলায় স্থানীয়দের মধ্যে চরম ক্ষোভ উত্তেজনা বিরাজ করেছে।   স্থানীয়দের অভিযোগ, বক্তাবলীর ৯নং ওয়ার্ড এলাকার লালমিয়ার চর এলাকার ঈদের জামাতের জন্য নির্ধারিত বায়তুল আকসা জামের মসজিদের পাশে মাঠটি ঈদের জামাতের জন্য ব্যবহার করেন স্থানীয়রা। কিন্তু হাটের জন্য মঙ্গলবার ওই ঈদগাহের জমিতে বাশ পুঁতে দখল করা হয়েছে। এতে ঈদের জামাত নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে শঙ্কা দেখা দিয়েছে।   মঙ্গলবার (৬ আগষ্ট) দুপুরে সরেজমিনে ঘুরে এ অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে।   ঈদগাঁ মাঠে এ হাট বসানোকে কেন্দ্র করে বক্তাবলীর লাল মিয়ার চর এলাকায় উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। ক্ষুব্ধ স্থানীয়রা যে কোন সময় এ নিয়ে সংর্ঘর্ষে জড়িয়ে পড়তে পারে। মাঠের পবিত্রতা রক্ষার জন্য মসজিদ কমিটি গ্রামের লোকদের জড়ো করছেন। অপরদিকে হাটের ইজারাদার হওয়ায় যে কোন মূল্যে ঈদগাঁয় হাট বসাবেন বলে ঘোষণা দিয়েছেন। ফলে দুই পক্ষের অনঢ অবস্থান পরিস্থিতি ঘোলাটে করে তুলেছে।   গ্রামবাসীর অভিযোগ, ঈদ গাঁ মাঠ একটি পবিত্র জায়গা। এখানে বছরে দুইটি ঈদের জামায়াত, ওয়াজ মাহফিল সহ সারা বছরই জানাযা নামাজ আদায় হয়। ঈদগাঁ মাঠের বাউন্ডারীর ভিতরেই রয়েছে মসজিদ। দেশের কোথাও ঈদ গাঁ মাঠে হাট বসেনি। আমরাও বসতে দিবো না। প্রয়োজনে রক্ত দিবো তবুও মাঠের পবিত্রতা রক্তা করবো।   হাটটির ইজারা দাবি করা স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আমি উপজেলা পরিষদ থেকে ইজারা পেয়েই হাট নির্মাণের কাজ শুরু করেছি। উপজেলা পরিষদের সকল নিয়ম কানুন মেনেই আমরা হাট করছি। কিš‘ কে বা কারা মসজিদের মাঠে বাঁশ পুঁতেছে আমি জানি না। যদি ঈদগাহের মাঠে কেউ বাঁশ পুতে সকালে গিয়ে আমি উঠিয়ে দেব।   তবে এ ব্যাপারে সদর উপজেলা পরিষদের সচিব মনির বলেন, আমরা বক্তাবলী চর বয়রাগাদি এলাকায় একটি গরুর হাটের ইজারা দিয়েছি। তবে কোন ঈদগাঁ মাঠে গরুর হাটের অনুমতি দেইনি।   হাটটি বিষয়ে বক্তাবলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শওকত আলী বলেন, আমি এ বিষয়ে জানি না। তবে আমার ইউনিয়নে যদি কোন ঈদ গাঁ মাঠে গরুর হাট বসে, আমি তা বন্ধ করে দিবো।