রবিবার, অক্টোবর ১৩, ২০১৯ ,২৮ আশ্বিন ১৪২৬
২৮ আগস্ট ২০১৯ বুধবার , ৯ : ০১ অপরাহ্ন

  • শঙ্কিত ব্যবসায়ী ইসহাক আহমেদের জিডি

    x

    Decrease font Enlarge font

    T-001টাইমস নারায়ণগঞ্জ (সোনারগাঁ প্রতিনিধি): পারিবারিক পূর্ব শত্রুতার জের ধরে একটি কুচক্র দীর্ঘদিন ধরে বিকেএমইএ’র সদস্য ব্যবসায়ী ইসহাক আহমেদের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্র করে আসছে। এ ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে তাকে পৈত্রিক নিবাস সোনারগাঁর সনমান্দি এলাকার নানা ঘটনার সাথে সম্পৃক্ত করে মামলা-মোকদ্দমায় জড়ানোর অপচেষ্টায় লিপ্ত থাকে। দীর্ঘদিন ধরে এসব অপচেষ্টা চলে আসলেও সম্প্রতি এ তৎপরতা আরও বেড়েছে। ফলে এসব বিষয়ে শঙ্কা প্রকাশ করে গত ২৭ আগস্ট সোনারগাঁ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। জিডি নং-১০৫৬।

    জিডিতে তিনি উল্লেখ করেন-‘আমি নাারয়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা থানাধীন জামতলা এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করে আসছি। আমার পৈত্রিক নিবাস সোনারগাঁ থানাধীন সনামন্দি ইউনিয়নের টেমদিতে। পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পাশ^বর্তী লেদামদি গ্রামের (১) আবুল হাশেম রতন (৪৫), (২) আবুল হোসেন (৩৫), (৩) খোকন (৫০) সর্বপিতা: আব্দুল কাদির গং সহ অজ্ঞাত আরো ১০/১৫ জনের একটি চক্র দীর্ঘদিন ধরে আমার ও আমার পরিবারের সদস্যদের ক্ষতিসাধন করার পায়ঁতারা করে আসছে। এরই অংশ হিসেবে বিভিন্ন সময় নানা ঘটনায় আমাকে ও পরিাবরের সদস্যদের মামলা-মোকদ্দমায় জড়িয়ে দেবার অপচেষ্টায় লিপ্ত থাকে। শুধু তাই নয়, নানা সময় গণমাধ্যমে বিভ্রান্তিকর বক্তব্য প্রচার করে আমার পরিবারের মানহানী ও সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করা-ই শুধু নয়, আতঙ্কগ্রস্থ করে রাখে।

    আমি বিকেএমইএ’র একজন সদস্য, সাধারণ ব্যবসায়ী। আমি মূলত: নারায়ণগঞ্জের জামতলায় বসবাস করি। পৈত্রিক নিবাসের কোন ঘটনার সাথে আমাকে জড়ানোর পরিকল্পনা শুধুই উদ্দেশ্যমূলক। ইসহাক আহমেদ ওই চক্রটির বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণেও দাবি জানান।

    সোনারগাঁ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুজ্জামান জিডির বিষয়টি গুরুত্ব সহ তদন্ত করা হবে জানিয়ে বলেন, কোন নিরপরাধকে হয়রানি করা হলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।