বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৯, ২০১৭ ,৪ কার্তিক ১৪২৪
১১ ডিসেম্বর ২০১৫ শুক্রবার , ৪ : ০২ অপরাহ্ন

  • যুদ্ধাপরাধীরা যে দলেরই হউক আমরা চাই তাদের বিচার হউক- এ কে এম মহসিন মিয়া

    x

    Decrease font Enlarge font

    টাইমস নারায়ণগঞ্জকে একান্ত স্বাক্ষাৎকারে সোনারগাঁয়ের বীর মুক্তিযোদ্ধা

    05

    টাইমস নারায়ণগঞ্জ: রাজাকারের পরিচয় রাজাকারই, সে একাত্তরের মানবতা বিরোধী অপরাধে যুদ্ধাপরাধী। আর যুদ্ধাপরাধী সে দেলেরই হোক আমরা তার বিচার চাই। জাতির বীর সন্তানদের স্মৃতিকথা শীর্ষক একান্ত স্বাক্ষাৎকারে চলমান বিজয় মাসে অনুভূতি প্রকাশে টাইমস নারায়ণগঞ্জের বিশেষ আয়োজনে সোনারগাঁ মোগরাপাড়া ইউনিয়নের কালীগঞ্জ এলাকার মৃত মোহম্মদ আলীর ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা এ কে এম মহসিন মিয়া উপরোক্ত কথাগুলো বলেছেন। তিনি বলেন, একাত্তরের ৭ মার্চ যখন বঙ্গবন্ধু যুদ্ধের একটা পূর্বভাস দিলেন। আমি তখন ১৭ বছর বয়েসি টগবগে যুবক। আমাদের বয়েসি অনেকে একই সাথে সেদিন দেশকে স্বাধীন করতে যুদ্ধে যাই। ভারতের মেলাঘরে ট্রেনিং নিয়ে র্দীঘ নয় মাস যুদ্ধ করে দেশ স্বাধীন করি। এটা বিশ্বের মধ্যে বিরল ঘটনা যে,মাত্র নয় মাস যুদ্ধ করে একটা দেশ স্বাধীন করা যায়।

    বর্তমানে স্বাধীনতার পক্ষের শক্তি আওয়ামী লীগের সরকার ক্ষমতায়। এ সরকার আমলে আপনি কেমন আছেন? টাইমস নারায়ণগঞ্জের এমন প্রশ্নের জবাবে এ কে এম মহসিন বলেন, মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে মূল্যায়ন যতটুকু পেয়েছি তা এই সরকার ক্ষমতায় আসার পরই পেয়েছি। এ সরকার আমাদের জন্য অনেক করেছে আরও কিছু করবে বলে আশ্বাস পেয়েছি। বেঁচে থাকতে সম্মানী পাচ্ছি, বিভিন্ন অনুদান পাচ্ছি, বিভিন্ন জাতীয় দিবসে সংবর্ধনা পাচ্ছি এবং মৃত্যুর পর রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন এবং তাছাড়া কাফনের খরচটাও এই সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য চালু করেছে।

    তিনি বলেন,আমার এক মেয়ে দুই ছেলে। যুদ্ধের পর থেকে এ যাবৎ শিক্ষকতা করেছি। সর্বশেষ কালীগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধাণ শিক্ষক থাকা কালীন অবসর নেই। বর্তমানে আমি আছি অবসরে আর আমার মেয়ে আছে ঐ স্কুলেই সহকারী শিক্ষক হিসেবে। দুই ছেলে, দু’জনেই আইনজীবী। তবে বড় ছেলে মাহমুদ হাসান বিং এ ব্যরিষ্টার। আর ছোট ছেলে মাহমুদ হোসাঈনসহ দুজনেই ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ জজ কের্টে প্রাকটিস করছে।

    তিনি ভূয়া মুক্তিযোদ্ধাদেরকে গায়েবী মুক্তিযোদ্ধা উল্লেখ করে তাদের অপতৎপরতা থেকে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের মর্যাদা রক্ষা করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণে সরকারের প্রতি মিনতি জানান।